‘গ্রেফতার না করলে হাজিরা দেব!’ আদালতে আবদার শাহজাহানের

ইডি যদি তাঁকে গ্রেফতার না করে তবে তিনি তাদের দফতরে হাজিরা দেবেন। আইনজীবী মারফত আদালতে নতুন আবদার শাহজাহান শেখের। সোমবারই তাঁর ইডির দফতরে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হাজিরা না দিয়ে তিনি আইনজীবী মারফত গ্রেফতার না করার আবেদন জানান আদালতে।

সোমবার তাঁর আগাম জামিনের আবেদনের শুনানি ছিল আদালতে। শাহজাহানের আইনজীবী আদলতে বলেন, ইডি বলে তাঁর মক্কেলকে গ্রেফতার করা হবে না, তবে তিনি ইডি দফতরে হাজিরা দিতে পারেন। এর জন্য ২ দিন সময় চান আইনজীবী। অথবা তাঁর এই আবেদনের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ইডি তাঁর বিরুদ্ধে সমন জারি করতে পারবে না, এমন নির্দেশ দিক আদালত।

বিচারক জানতে চান, ইডির ডাকে কেন সাড়া দিচ্ছেন না শেখ শাহজাহান? জবাবে তাঁর আইনজীবী জানান, ইডির ধারণা শাহজাহান সীমান্ত দিয়ে বিদেশে টাকা পাঠান। উনি প্রভাবশালী ব্যক্তি। বিদেশে টাকা পাঠান। তাই তথ্য নষ্টের আশঙ্কায় তাঁকে গ্রেফতার করা হতে পারে।

পড়ুন। ‘যতদূর সম্ভব’ সবাই অ্যারেস্ট হয়ে গিয়েছে, সন্দেশখালির ঘটনা নিয়ে দাবি মমতার

পড়ুন। সন্দেশখালি ইস্যুতে বিধানসভায় বিক্ষোভ, সাসপেন্ড শুভেন্দু-সহ ৬ বিজেপি বিধায়ক

পাল্টা সওয়াল করে ইডি-র আইনজীবী বলেন, বিষয়টি এমন হল, যেন ঠাকুর ঘরে কে, আমি তো কলা খাইনি গোছের ব্যাপার।’

এর পর আগের ঘটনাবলীর প্রসঙ্গ তুলে ইডির আইনজীবী বলেন, ‘আমাদের পাথর ছোড়া হয়েছে। আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ সব কিছুর পর আমরা দায়িত্ব নিতে পারব না। ‘

প্রসঙ্গত, গত পাঁচ জানুয়ারি রেশন দুর্নীতির তদন্তে শেখ শাহজাহানের বাড়ি যায় ইডি। সেখানে গিয়ে তৃণমূল নেতার দেখা মেলেনি। তবে অনুগামীদের হাতে মার খেতে হয় ইডির আধিকারীকদের। উল্টে পুলিশ থানায় ইডি আধিকারিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে।

তার পর গত বুধবার থেকে সন্দেশখালির পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। শাহজাহান এবং তাঁর অনুগামীদের গ্রেফতার করার দাবিতে লাগাতার বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন স্থানীয় মানুষ । ইতিমধ্যে গ্রামবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে তৃণমূল নেতা উত্তম সর্দারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অন্যদিকে জনতার বিক্ষোভে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ সিপিএম নেতা নিরাপদ সর্দারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।